Xossip

Go Back Xossip > Mirchi> Stories> Regional> Bengali > বুকুন

Reply Free Video Chat with Indian Girls
 
Thread Tools Search this Thread
  #41  
Old 29th January 2017
uttam4004 uttam4004 is offline
Custom title
 
Join Date: 14th December 2015
Posts: 1,537
Rep Power: 5 Points: 1049
uttam4004 has received several accoladesuttam4004 has received several accoladesuttam4004 has received several accoladesuttam4004 has received several accoladesuttam4004 has received several accolades
Quote:
Originally Posted by bodmas82 View Post
uttam da , ami apnar lekhar bhokto. porechi niyomito , montobyo kore uthte pari ni. likhte thakun.
ভক্ত আবার কি কথা? বন্ধু বলুন!!!!! আর বন্ধুরা লুকিয়ে থাকলে চলবে? সামনে আসতে হবে তো বস.. ভাল থাকবেন

Reply With Quote
  #42  
Old 29th January 2017
uttam4004 uttam4004 is offline
Custom title
 
Join Date: 14th December 2015
Posts: 1,537
Rep Power: 5 Points: 1049
uttam4004 has received several accoladesuttam4004 has received several accoladesuttam4004 has received several accoladesuttam4004 has received several accoladesuttam4004 has received several accolades
Quote:
Originally Posted by Daily Passenger View Post
লেখা হল?
কালকেও পারি নি গুরুভাই.. এখন লিখতে বসেছি।

Reply With Quote
  #43  
Old 29th January 2017
babu1458 babu1458 is offline
 
Join Date: 25th January 2017
Posts: 29
Rep Power: 2 Points: 28
babu1458 is an unknown quantity at this point
লিখুন ভাই তারাতারি লিখুন।

Reply With Quote
  #44  
Old 30th January 2017
Mehndi1 Mehndi1 is offline
 
Join Date: 4th October 2013
Posts: 628
Rep Power: 10 Points: 908
Mehndi1 has received several accoladesMehndi1 has received several accoladesMehndi1 has received several accoladesMehndi1 has received several accolades
Quote:
Originally Posted by uttam4004 View Post
অষ্টমী তো আগামীকাল.. অপেক্ষা করুন.. দাদা
WAITING WITH BATED BREATH

Reply With Quote
  #45  
Old 30th January 2017
Bhalobasharlalgolap's Avatar
Bhalobasharlalgolap Bhalobasharlalgolap is online now
Custom title
 
Join Date: 24th October 2016
Posts: 1,686
Rep Power: 7 Points: 4652
Bhalobasharlalgolap is hunted by the papparaziBhalobasharlalgolap is hunted by the papparaziBhalobasharlalgolap is hunted by the papparaziBhalobasharlalgolap is hunted by the papparaziBhalobasharlalgolap is hunted by the papparazi
দাদা শুরুটা খুব ভালো।শুধু একটাই অনুরোধ সেক্সটা অবশ্যই সামিল করবেন তাহলে পড়তে ভালো লাগে।
______________________________
NEVER JUDGE A MAN BY HIS CLOTHES

Reply With Quote
  #46  
Old 30th January 2017
heartwrench1994 heartwrench1994 is offline
 
Join Date: 24th May 2016
Posts: 138
Rep Power: 3 Points: 110
heartwrench1994 is beginning to get noticed
duuur apnio to dekhchhi sobar mto hye gelen.. deri korchhen update dite!

Reply With Quote
  #47  
Old 31st January 2017
babu1458 babu1458 is offline
 
Join Date: 25th January 2017
Posts: 29
Rep Power: 2 Points: 28
babu1458 is an unknown quantity at this point
হায়রে আর তো লেখা এলো না।

Reply With Quote
  #48  
Old 31st January 2017
babu03 babu03 is offline
 
Join Date: 10th July 2009
Posts: 615
Rep Power: 21 Points: 1155
babu03 has received several accoladesbabu03 has received several accoladesbabu03 has received several accoladesbabu03 has received several accoladesbabu03 has received several accolades
Ki holo update kothay?

Reply With Quote
  #49  
Old 31st January 2017
xxbengali's Avatar
xxbengali xxbengali is offline
Custom title
 
Join Date: 24th May 2008
Posts: 8,221
Rep Power: 35 Points: 7359
xxbengali has celebrities hunting for his/her autographxxbengali has celebrities hunting for his/her autographxxbengali has celebrities hunting for his/her autographxxbengali has celebrities hunting for his/her autographxxbengali has celebrities hunting for his/her autographxxbengali has celebrities hunting for his/her autographxxbengali has celebrities hunting for his/her autographxxbengali has celebrities hunting for his/her autographxxbengali has celebrities hunting for his/her autograph
UL: 13.40 gb DL: 24.47 gb Ratio: 0.55
Waiting Dear ..

Reply With Quote
  #50  
Old 31st January 2017
uttam4004 uttam4004 is offline
Custom title
 
Join Date: 14th December 2015
Posts: 1,537
Rep Power: 5 Points: 1049
uttam4004 has received several accoladesuttam4004 has received several accoladesuttam4004 has received several accoladesuttam4004 has received several accoladesuttam4004 has received several accolades
-- ৬ --

বেশ কিছুক্ষণ কথা হয়েছিল সে রাতে। তারপরে হঠাৎই বুকুন বলেছিল, শোন রবিদা, মনে হচ্ছে ও এসে গেছে। এখন রাখি। কাল প্যান্ডেলে দেখা হবে। কাল কিন্তু ও থাকবে সঙ্গে।
আচ্ছা বলে ফোনটা রেখে দিয়েছিলাম। অনেকক্ষণ ঘুম আসে নি সপ্তমীর রাতে। তারপরে কখন যে ঘুমিয়ে পড়েছিলাম, খেয়ালই নেই। পরের দিন সকালে ঘুম ভেঙ্গেছিল মায়ের ডাকে। চা খেতে খেতে হোয়াটস্ অ্যাপ চেক করে নিয়েছিলাম বউ একটা ছবি পাঠিয়েছে রাত তিনটের সময়ে আত্মীয়-বন্ধুদের সঙ্গে তোলা সেলফি কোনও একটা পুজো প্যান্ডেলের সামনে তোলা! ভালই এঞ্জয় করছে রাতভর!
যার মেসেজ আশা করেছিলাম তার কাছ থেকে সেই কাল রাতের পরে আর কোনও মেসেজ নেই।
স্নানটান সেরে তৈরী হয়ে নিয়েছিলাম প্যান্ডেলে যাব বলে। মা আশপাশের বাড়ির মাসিমা-কাকিমাদের সঙ্গে রিক্সা করে একটু আগে চলে গেল। আমি পড়ে বেরলাম সাইকেল নিয়ে।
অষ্টমীর অঞ্জলি শুরু হতে তখনও দেরী আছে। পাড়ার বেশ কিছু বন্ধু বান্ধব তাদের বউ ছেলে মেয়ে নিয়ে এসেছে অঞ্জলি দিতে। কাল এদের কয়েকজনের বাড়ি গিয়ে আড্ডা দিয়ে এসেছি। বাকি কয়েকজনও জেনেছে যে আমি এসেছি। গ্রামে এলেই ওদের বাড়ি যাই, তাই বউ-ছেলে-মেয়েদের সঙ্গেও পরিচয় আছে আমার।
ওদের সঙ্গে আড্ডা দেওয়ার ফাঁকেই দেখলাম বুকুনের বর আসছে ছেলে আর শাশুড়িকে নিয়ে। বুকুনকে আগেই দেখে নিয়েছি কালকের মতোই স্টেজের ওপরে পুজোর কাজে ব্যস্ত।
দূর থেকে দেখে মনে হল ওর শাড়িটা বোধহয় কমলা রঙের পাড় দেওয়া সাদা শাড়ি। সঙ্গে বোধহয় কমলা ব্লাউজ। আগের দিনের মতোই আঁচলটা কোমরে গুঁজে রাখা। আমাকে বোধহয় এতদূর থেকে খেয়াল করে নি।
বুকুনের বরকে আসতে দেখে আমার কয়েকজন বন্ধু বলল, ওই যে আসছে মালটা! আমার দিকে তাকিয়ে এক বন্ধু বলল, রবি, এ কে জানিস তো? বুকুনকে মনে আছে তোর? ওর বর আর ছেলে। একেবারে লুচ্চা একটা। প্রতিবার গ্রামে এসে একটা না একটা ক্যাচাল বাধায় মাল খেয়ে।
আমার আর বুকুনের সম্পর্কটা এরা সবাই জানত। বুকুনের বিয়ে হয়ে যাওয়ার পর থেকে তাই এতগুলো বছরে ওর নামটাও আর আমার সামনে বলত না ওরা। কিন্তু ওর বরকে আসতে দেখে ওদের নিজেদের তৈরী নিয়মই ভাঙ্গল।
ও তাই নাকি? কাল হঠাৎই প্যান্ডেলে দেখা হয়েছিল বুকুনের সঙ্গে। ওদের বাড়ি নিয়ে গিয়ে বরের সঙ্গে আলাপও করিয়ে দিয়েছে। কথা বলে মনে হয় নি তো যে ক্যাচাল করার লোক!বললাম আমি।
ও প্রথম দিনেই দেখা হয়েছে তোর সঙ্গে? এক বন্ধু ফাজলামি করল।
আরেক জন বলল, আরে জানিস না। গ্রামে এলেই কিছু না কিছু ঝামেলা করবেই। একবার আমার সঙ্গে হয়েছিল, দিয়েছিলাম একটা থাবড়া।
পাশ থেকে ওর বউ বলল, ভদ্রলোক এমন ভাবে তাকিয়ে থাকেন না মেয়েদের দিকে, গা জ্বলে যায়। যেন জীবনে মেয়ে দেখে নি গিলে খায় একেবারে। পাড়ার জামাই বলে কিছু বলতেও পারি না। আপনার বন্ধু সেটা বলতে গিয়েছিল বলেই তো ঝামেলা শুরু হল।
আমি বললাম, ভদ্রলোক তো খুব ভাল চাকরী করেন, উঁচু পোস্টে!
বন্ধুদের মধ্যে কে একজন বলল, তাতে কী হয়েছে?
এইসব কথাবার্তার মধ্যেই বুকুনের বর আমাদের দিকে তাকাতে তাকাতেই প্যান্ডেলের দিকে আসছিল। বন্ধুদের সঙ্গে আমাকে দেখে আর এদিকে এল না। গালে চড় খাওয়ার কথা মনে পড়ে গেল বোধহয়!
বুকুনের মা বোধহয় খেয়াল করেন নি আমাকে।
অঞ্জলি শুরু হল আজ ভীড় বেশি কালকের থেকে। বন্ধু আর তাদের বউরা কেউ কেউ এগিয়ে গেল ভেতরে অঞ্জলি দিতে।
শেষের দিকে আমরা বাকিরা গেলাম। আজ আর স্টেজের বেশি কাছাকাছি যাই নি। সঙ্গে বন্ধুরা আছে, বুকুনের বরও থাকতে পারে কাছে পিঠে। বুকুন আমার সঙ্গে কথা বললে ওরা কি ভাববে!
আগের দিনের মতোই হাতে হাতে ফুল-বেলপাতা দিতে দিতে আমার সঙ্গে চোখাচুখি হল ওর। কিন্তু আজ আর কিছু বলল না। দূর থেকে ঠিকই আন্দাজ করেছিলাম সাদা শাড়ির পাড়টা গাঢ় কমলা রঙের সঙ্গে কমলা ব্লাউজ। বেশ ঘেমে গেছে বোঝাই যাচ্ছে।
পাশ থেকে এক বন্ধু কনুই দিয়ে গোঁতালো, ওর দিকে তাকিয়ে দেখি ঠোঁট টিপে হাসছে। আমি রিঅ্যাক্ট করলাম না!
অঞ্জলির পরে বাইরে এসে আবার কিছুক্ষণ গুলতানি চলল। মা-মাসিমা-কাকিমারা এখনও ভেতরেই বসে আছে পুজো দেখছে।
দেখি বুকুনের বর আমার দিকে এগিয়ে আসছে। যতই বন্ধু আর ওদের বউরা এই লোকটা সম্বন্ধে কিছুক্ষণ আগে খারাপ কথা বলে থাকুক কালকেই মাত্র আলাপ হয়েছে আড্ডাও হয়েছে, তাই আমিও মুখে একটু হাসি টেনে বললাম, কি খবর? অঞ্জলি দেওয়া হল?
হ্যাঁ। তো এখন কি প্ল্যান তোমার? জিগ্যেস করল বুকুনের বর। কালকে আলাপের একটু পরেই ও বলেছিল, আমি না বেশিক্ষণ আপনি-টাপনি বলতে পারি না। আর তুমি তো বউয়ের বন্ধু, তাই ছোটই হবে তুমি বলছি.. কেমন? আমি আপত্তি করি নি!
জবাব দিলাম, কোনও প্ল্যান নেই। এদিক ওদিক ঘুরব আড্ডা দেব আর কি!
দুপুরে ফাঁকা আছ?
কেন?
মাল টাল খাও তো নাকি? বসবে নাকি?
দুপুরবেলা? না না! আর আমি সেরকম খাই না.. মাঝে সাঝে পার্টিফার্টিতে গেলে খাই একটু। তবে গ্রামে এসে দুপুরে খাব না দাদা। স্পষ্ট করেই বললাম।
তাহলে রাতে বসি চলো। আমার কিছু বন্ধুবান্ধব আছে টাউনে। ওখানে যাব। তোমার বন্ধুও যাবে আজ... আড্ডা হবে। এখন চলি বুঝলে?
বুকুনও কি মদ খায় নাকি? সেই প্রশ্নটা আর করা হল না! এটাও বলা হল না যে আমি বুকুনের বর আর তার বন্ধুদের সঙ্গে বসে মদ খেতে রাজি কী না! ওর বর ছেলে আর শাশুড়িকে নিয়ে এগিয়ে গেল রাস্তার দিকে।
টুং করে একটা মেসেজ এল মোবাইলে। বার করে দেখি একটা সেভ না করা নম্বর থেকে মেসেজ। কাল রাতেই মাত্র এই নম্বরটা চিনেছি আমি।
লেখা আাছে, চলে যাস না রবিদা
বন্ধুরা আর ওদের বউয়েরা কয়েকজন বাড়ির দিকে পা বাড়িয়েছে। আমাকে জিগ্যেস করল, ওদের কারও বাড়ি যাব কী না। মা আছে পুজো প্যান্ডেলে সেকথা বলে ওদের কাটিয়ে দিলাম।
পুজোর অঞ্জলি শেষ হয়েছে। প্যান্ডেল বেশ ফাঁকা হয়েছে। মা আর মাসিমা-কাকিমারা এগিয়ে আসছে। রিক্সা করে বাড়ি যাবে।
আমি বললাম পরে যাব একটু। তুমি এগোও।
আরও কিছুক্ষণ এদিক ওদিক করার পরে আবারও সেই নাম দিয়ে সেভ না করা নম্বর থেকে মেসেজ। প্যান্ডেল থেকে একটু এগিয়ে গিয়ে দাঁড়া। আমি আসছি।
সাইকেলটা নিয়ে হাঁটতে হাঁটতে একটু এগিয়ে গেলাম।
বুকুন বোধহয় চাইছে না সবাই দেখুক যে ও আমার সঙ্গে হেঁটে বাড়ি ফিরছে পর পর দুদিন।
মিনিট পাঁচেক পরেই হন্তদন্ত হয়ে এল ও।
কী রে রবি দা। জেঠিমা চলে গেছে?
ও আমার মা কে জেঠিমা বলে ছোট থেকেই।
হুম। এই তো গেল।
তুই কোথাও যাবি এখন?
না । কেন রে?
আমার এখন বাড়ি যেতে ইচ্ছে করছে না। বাড়ি গেলেই অশান্তি আছে একটা। কোথাও বসবি একটু?
আমাদের বাড়িতে চল, বললাম আমি।
বাড়িতে? জেঠিমা কী মনে করবে!
কেন কিছু মনে করবে? আমি তো কাল বললাম যে তোদের বাড়ি গিয়েছিলাম!
ও বলেছিস?
চল তাহলে
সাইকেলে উঠবি নাকি? হঠাৎ হেসে বললাম।
ধ্যাৎ। বদমাশ।
ও এইভাবেই বদমাশ কথাটা বলত ছোটবেলায় বিলের মাঠে যখন আমরা দুজনে খুব ঘণ হয়ে বসে থাকতাম, অথবা আমার সাইকেলের রডে চাপিয়ে যখন ফিরতাম সন্ধ্যেবেলার অন্ধকার, ফাঁকা রাস্তা দিয়ে, সেইসময়ে।
কলেজ-ইউনিভার্সিটির ছুটিতে এসে বুকুনকে নিয়ে সাইকেলে ঘোরাটা আমার ফেভারিট পাসটাইম ছিল।
বুকুনও আমার ছুটির সময়গুলো নিজের কলেজ-পড়াশোনায় ফাঁকি দিয়ে আমার সঙ্গে ঘুরত। দুজনের বাড়ির মায়েরাই কখনও আপত্তি করে নি। তবে তারা তো আর জানত না যে বিলের মাঠে আমরা কী করি, বা সাইকেলে চাপিয়ে নিয়ে আসার সময়ে কী করি! তাহলে যতই কলেজ-ইউনিভার্সিটিতে পড়ি না কেন, মেরে বাড়ি থেকে বার করে দিত হয়তো দুজনকেই।
অত বছর আগে গ্রামের উঠতি বয়সের মেয়েদের মধ্যে স্কার্ট পড়ার চল ছিল না, সালোয়ার পড়ত অনেকে। কিন্তু বিলের মাঠে যেতে হলে আমি বুকুন শাড়ি পড়ে আসত।
প্রথমবার কলেজ থেকে ছুটিতে যখন এসেছিলাম, প্রথম বিকেলেই বিলের মাঠে গিয়েছিলাম দুজনে। পড়ন্ত বিকেল তখন।
বুকুন একটা গাঢ় সবুজ রঙের সালোয়ার কামিজ পড়ে এসেছিল।
একটা গাছে আড়ালে বসেই ওর মুখটা টেনে নিয়েছিলাম নিজের দিকে। ও আঁকড়ে ধরেছিল আমার কাঁধদুটো।
সেদিনই আরও কিছুটা পড়ে ওর ওই সালোয়ার নিয়ে ঝামেলায় পড়েছিলাম আমি। ফিতে খুলতে গিয়ে জট পাকিয়ে ফেলেছিলাম।
অনেকক্ষণের চেষ্টায়, তড়বর তড়বর করে অনেক বকাঝকার পরে যখন গিঁটটা ও নিজেই ছাড়াতে পেরেছিল, তখনই উঠে পড়ে বুকুন বলেছিল, রবিদা বাড়ি চল। ভাল্লাগছে না আজ।
অবাক হয়ে আমিও উঠে দাঁড়িয়েছিলাম। সেদিন সাইকেলেও ওঠে নি। পাশাপাশি হাঁটতে হাঁটতে প্রায় কোনও কথা না বলেই বাড়ি চলে এসেছিলাম।
কয়েকবার জিগ্যেস করেছিলাম, তোর হলটা কী?
কিছু না। একটা জিনিষও যদি ঠিক মতো করতে পারিস।
চুপ করে গিয়েছিল ও।
আমি পড়েছিলাম আতান্তরে সালোয়ারের ফিতেতে যদি অনভ্যস্ত হাতে গিঁট পড়ে যায়, আমি কী করব!!
বুকুনের মেজাজ দেখে আর সেদিন কথা বাড়াই নি।
চলে যাওয়ার আগে শুধু বলেছিল, কাল টাউনে সিনেমা দেখতে যাব। কলেজ যাওয়ার পথে টিকিট কেটে রাখব। ম্যাটিনি শো। সময়মতো পৌঁছে যাস গাধা।
বুকুন চলে গিয়েছিল।
পরের দিন কলেজ পালিয়ে ও সিনেমা দেখতে গিয়েছিল। শাড়ি পড়েছিল ও সেদিন। তারপর থেকে আমি এলে ও শাড়ি-ই পড়ত।
এই যে কাল আর আজ দুদিন ওর সঙ্গে দেখা হল সেই শাড়িতেই!
আজ বুকুন যে গাঢ় কমলা রঙের ব্লাউজটা পিঠের দিকে বেশ কিছুটা কাটা। আমার বন্ধুদের বউরাও আজকাল সালোয়ার কামিজ বা কেউ কেউ বেড়াতে গেলে জিনস টিন্সও পড়ে ফেসবুকে ছবি দেখেছি। তবে গ্রামে থাকলে এতটা পিঠ খোলা ব্লাউজ পড়তে চট করে কাউকে দেখি নি।
বুকুন তো এখন আর গ্রামের মেয়ে না। সে জামশেদপুর ঘুরে কলকাতার সল্টলেকবাসী।
টুকটাক কথাবার্তার মধ্যেই ও জিগ্যেস করেছিল, হ্যাঁ রে রবিদা প্যান্ডেলের বাইরে আমার বর তোকে কী বলছিল রে?
আমি ওর প্রশ্নের জবাব না দিয়ে কিছুক্ষণ আগে শোনা বন্ধু আর ওদের বউদের কাছে শোনা কথাগুলো বললাম।
তোর বর কি গ্রামে এসে মদ খেয়ে ঝামেলা করে নাকি? শুনলাম!
সে অনেক কথা রে রবিদা। এই জিনিষ এতগুলো বছর ধরে সহ্য করতে বাধ্য হচ্ছি। আরও অনেক কিছুই করতে হয় আমাকে, যেগুলো তোকে বলতে পারব না!
যেমন?
থাক না রবিদা। এত্তবছর পরে দেখা হল। পুজোর কটা দিনের আনন্দ আর মাটি করে দিস না প্লিজ।
চুপ করে গেলাম। কখনই আমি বুকুনের ইচ্ছা-অনিচ্ছার ওপরে নিজের মত চাপাই নি। এখনও ও যখন বলতে চাইছে না, তখন আর কথা বাড়ালাম না আমিও।
দুপুরবেলায় মদ খাওয়ার কথা বলছিল তোর বর। আমি না করে দিয়েছি। তখন আবার সন্ধেবেলায় টাউনের বন্ধুদের আড্ডায় আমাকে যেতে বলল। তুই-ও নাকি যাবি?
ইশশ... কী শুরু করেছে কী লোকটা! ছি ছি! মুখে আঁচল চাপা দিল বুকুন।
তুই ও ওর বন্ধুদের সঙ্গে মদের পার্টিতে যাস নাকি?
বাড়িতে আসার আগে পর্যন্ত ওর মুখ দিয়ে আর একটা কথাও বেরয় নি।
বুকুনকে দেখে মা একটু অবাক হল তবে কয়েক সেকেন্ডের জন্য।
তারপরেই বুকে জড়িয়ে ধরে বলল, কতদিন পরে এলি রে মা। আয় বোস।
--

Reply With Quote
Reply Free Video Chat with Indian Girls


Thread Tools Search this Thread
Search this Thread:

Advanced Search

Posting Rules
You may not post new threads
You may not post replies
You may not post attachments
You may not edit your posts

vB code is On
Smilies are On
[IMG] code is On
HTML code is Off
Forum Jump


All times are GMT +5.5. The time now is 04:35 PM.
Page generated in 0.01895 seconds