Xossip

Go Back Xossip > Mirchi> Stories> Regional> Bengali > বন্দিনী

Reply Free Video Chat with Indian Girls
 
Thread Tools Search this Thread
  #11  
Old 19th January 2018
pongpong2000 pongpong2000 is offline
Custom title
 
Join Date: 24th September 2016
Posts: 2,519
Rep Power: 6 Points: 181
pongpong2000 is beginning to get noticed
Khub vlo ho6e.chalie jan.sathe a6i.

Reply With Quote
  #12  
Old 19th January 2018
pongpong2000 pongpong2000 is offline
Custom title
 
Join Date: 24th September 2016
Posts: 2,519
Rep Power: 6 Points: 181
pongpong2000 is beginning to get noticed
Asa krbo story ta ses krben.

Reply With Quote
  #13  
Old 19th January 2018
pongpong2000 pongpong2000 is offline
Custom title
 
Join Date: 24th September 2016
Posts: 2,519
Rep Power: 6 Points: 181
pongpong2000 is beginning to get noticed
Quote:
Originally Posted by rupakpolo1 View Post
শংকর যে এরকম দানবের মতো চেহারা তার কারণ তার বাবাকে দেখে বোঝা যাচ্ছিলো| ওরকম ষন্ডামার্কা পেশিদার পুরুষ মানুষ দেখে মা একটু থতমত খেয়ে গেছিলো| শংকরের বাবা পুরো কয়লার মত কালো | মেয়ে মানুষ ভালো বোঝে পুরুষ মানুষের দৃষ্টি আর কামনা| মাকে দেখে বুঝতে পারছিলাম মা বেশ অসস্তি বোধ করছিলো ওই লোকটার সামনে | যেভাবে মায়ের দিকে তাকিয়ে মাকে দেখছিলো, দেখে মনে হচ্ছিলো পারলে মাকে গিলে খাবে| হেডমাস্টার বুঝতে পেরে গেছিলো মায়ের শোচনীয় অবস্থার ব্যাপারে| একটু মুচকি হেসেছিলো সে| যাই হোক লোকটার সামনে মায়ের গলার স্বর বেশ কাপা কাপা লাগছিলো, কোনোরকম ভাবে বলল যে তার ছেলে শংকর আমাকে তাতিয়ে দিয়েছিলো| আগে কোনদিনও আমার কারোর সাথে এরকম মারপিট হয়েনি| শঙ্করের বাপ এক কথায়ে নিজের ছেলের অপবাদ স্বীকার করে নিলো-"ঠিক বলেছেন মাদাম..আমার ছেলে দোষী....এতো বিচ্ছু ছেলে হয়েছে....ছোটবেলায় মা না থাকলে যা হয়ে"|
যখন আমরা ফিরছিলাম এবং গাড়িতে উঠতে যাচ্ছিলাম আমাদের রাস্তা বাধা দিয়ে দাড়ালো সেই লোকটা| মুচকি হেসে জিজ্ঞেস করলো-"আপনারা এই গ্রামে নতুন এসছেন|"
মা থতমত খেয়ে বলল-"হা..কিছু মাস হলো|"
শঙ্করের বাবা-"আচ্ছা আমার নাম টা আপনাকে বলা হয়েনি..আমার নাম রজত সেথ...আমার ছেলে বলছিলো আপনার ছেলে নতুন স্কুলে ভর্তি হয়েছে| তখন বুঝলাম আপনারা নতুন এসছেন এই গ্রামে|"
মা মুচকি হাসলো এবং বুঝতে পারছিলো না কি বলবে| রজত সেথ লোকটি মাকে জিজ্ঞেস করে বসলো-"আপনার নামটা জানাবেন না..."
মা আসতে আসতে বলল-"কাকলি.."|
মনে হলো কৃত্রিম ভয়ের সঞ্চার হয়েছে| মায়ের সারা শরীর উপর থেকে নিচ দেখে নোংরা ভাবে মুচকি হেসে রজত সেথ দেখতে দেখতে বলল-"বাহ..মিষ্টি নাম তো আপনার.."|
মা তখনাত কথা ঘুরিয়ে বলল-"আমাকে তাড়াতাড়ি বাড়ি ফিরতে হবে..."
লোকটা আমাদের পথটা ছেড়ে দিলো আর আমরা সঙ্গে সঙ্গে গাড়িতে গিয়ে উঠলাম| মা গাড়িতে উঠে হাফাতে লাগলো| অদ্ভূত রকম ভাবে মায়ের সাড়া শরীর লালচে হয়ে গেছিলো| হয়তো এক অদ্ভূত রকম শিহরণ হচ্ছিলো তার শরীরের ভেতরে| রঘু গাড়ি চালিয়ে নিয়ে চলল গ্রামের রাস্তা দিয়ে| মায়ের সারা শরীরে মৃদু মৃদু ঘাম জমেছিলো| গাড়ির জানলাটা খুলে দিয়েছিলো মা, বাইরের হাওয়া গিয়ে মায়ের শরীরে গিয়ে ঠেকছিলো ,এলোমেলো করে দিয়েছিলো মায়ের চুল এবং অজান্তে বুক থেকে খসে গেছিলো মায়ের আচল| মায়ের বুকের বডার দেখা যাচ্ছিল ব্লৌসের উপর দিয়ে| মা চোখ বন্ধ করেছিলো কিন্তু গাড়ির সামনের আয়না থেকে আরো দুটো চোখ দেখলাম লুকিয়ে লুকিয়ে দেখছিলো মায়ের বক্ষ্যস্থল|
সেই চোখদুটি আর কারোর নয়ে আমাদের ড্রাইভার রঘুর| আমাদের রাগ হচ্ছিল তখন |বাড়িতে এসে ওই রজত সেথ লোকটার নোংরা নজরের ব্যাপারে বাবাকে জানাতে দেরি করলো না মা| বাবা বলে বসলো-"বাবাই শেষ পর্যন্ত রজত সেথের ছেলের সাথে মারপিট করেছে| তুই জানিস তুই কি সাংঘাতিক ভুল করেছিস |"
মা-"তুমি রজত সেথকে চেনো নাকি?"
বাবা-"নাম করা গুন্ডা এই এলাকার...এখানে যত কন্ট্রাক্ট কাজ গুলো ওর কোম্পানি নিয়ে নেয়|এমনকি আরো খারাপ খারাপ রেকর্ড আছে |এক কথায় বলতে তাদের নাম করা ডাকাত,ক্রিমিনাল|"
মা শুনে একটু ভয়ে পেয়ে বলল-"লোকটা এমন ভাবে আমার দিকে তাকাচ্ছিলো যে আমার নিজের নিজের উপর ঘৃনা আসছিলো|" কোনদিনও যেন কোন মহিলাকে দেখে নি !! আমার দম বন্ধ হয়ে আসছিল তখন"
বাবা-"উফ এই গ্রামের লোকগুলো এরকম....তোমাকে যেতে কে বলেছিলো..আমি যেতাম."
মা বাবার এই কথা শুনে চুপ হয়ে গেলো| এরপর পরের দিন যখন স্কুলে পৌছালাম সুমন্ত আমায়ে ডেকে বলল-"অভি তোকে আমার কিছু বোলার আছে?"
আমি বললাম-"কি?"
সুমন্ত বলল-"আগে প্রতিজ্ঞা কর আমি তোকে যা বলবো তা তুই কাউকে বলবি না|"
আমি-"সুমন্ত তোর কি আমার উপর বিশ্বাস নেই..."
সুমন্ত-"তুই আমার খুব ভালো বন্ধু কিন্তু তাও তোকে এই ব্যাপারে প্রতিজ্ঞা করতে হবে| কারণ এটা খুবই গুপ্ত ব্যাপার"
আমি-"ঠিক আছে প্রতিজ্ঞা করলাম ...এবার বোল কি বলবি..."
সুমন্ত-"তোকে আমি অনেক কিছু বলিনি...এই গ্রামের ব্যাপারে ...কি ঘটেছে আমার পরিবারের সাথে এই গ্রামে..কিন্তু আমাকে এই ব্যাপারে তোকে বোলা প্রয়োজন..কাল রাতে আমাদের বাড়িতে শঙ্করের বাবা রজত সেথ আর তার বাকি চেলা-চামুন্ডা গুলো এসেছিলো...ওরা আমার বাবা মাকে কাকিমার ব্যাপারে জিজ্ঞেস করেছে | মানে তোর মায়ের সমন্ধে এবং কথা দিয়েছে ওরা আমাদেরকে এই গ্রাম থেকে যেতে দেবে যদি আমার বাবা মা সাহায্য করে কাকিমাকে ওদের হাতে দিতে| এই লোকগুলো ভালো না|"
আমি-"আমি তো কিছুই বুঝতে পারছি না সুমন্ত তুই কি বলছিস.. একটু ভালো করে বুঝিয়ে বল আমায়"
সুমন্ত-"আমি জানি না তোকে আমি কিভাবে বোঝাবো| আমি চাই না কাকিমার সাথে এক জিনিস ঘটুক যা আমার মায়ের সাথে ঘটেছে|"
আমি-"কি ঘটেছে কাকিমার সাথে |"
সুমন্ত চুপ হয়ে গেলো সুমন্ত চোখ দুটো জলে ভারী হয়ে আসলো আমি কিছুটা বুঝতে পারলাম সুমন্ত এর সঙ্গে খুব খারাপ কিছু ঘটেছে এবং আসতে আসতে বলল-"আমি যে তোকে এই সব বলেছি, কাউকে বলবি না|"
আমি বললাম-"ঠিক আছে...আমি তো বলেছি কাউকে বলবো কিন্তু কাকিমার সাথে কি ঘটেছে আমাকে বলছিস না কেনো?"
সুমন্ত-"আমার মায়ের সাথে ওই গ্রামের লোকেরা অনেক নোংরা নোংরা কাজ করেছে...আমি তোকে বোঝাতে পারবো না অভি|"
আমি এই বিষয়ে সুমন্তকে বেশি কিছু জিজ্ঞেস করলাম না| কারন ও বেশ ভারাক্রান্ত হয়ে গেছে |বাড়িতে ফিরে আসার পর বাবা যখন কাজ সেরে বাড়িতে এলো মা বাবাকে বলল শিখা কাকিমা আজ আমাদের এই বাংলোতে এসছিলো দুপুরে এবং এই সপ্তাহের রবিবারে আমাদের নিমন্তন্ন করেছে তাদের বাড়িতে | শুনে খুব আনন্দিত হলাম, এই গ্রামে ওদের বাড়ি যাওয়া ছাড়া তেমন আসে পাসে আমার যাওয়া হতো না| আমরা ওই রবিবারে সুমন্ত দের বাড়িতে গেলাম| বাড়িতে আসতেই শিখা কাকিমা আমাকে আর সুমন্ত কে একটা ঘরে পাঠিয়ে দিলো এবং বলল-"তোরা দুইজন ওই ঘরে খেলাধুলা কর আর গল্পের বই পর আর আমরা বড়রা মাঝের ঘরে গল্প করি..."
আমি সুমন্ত ঘরে গিয়ে একটা কমিক্স বই হাতে নিয়ে শুয়ে পড়লাম| অন্য সময়ে সুমন্ত আর আমি দুজনে একসাথে কমিক্স পড়তাম কিন্তু আজ সুমন্তকে বেশ অন্যমনস্ক দেখলাম এবং আমার সাথে গল্প বই পড়া বা গল্প করার কোনো ইচ্ছে দেখলাম না| আমি জিজ্ঞেস করলাম-"কি হলো ? তোকে অন্যমনস্ক লাগছে কেন ?
সুমন্ত-"আমি সেদিন তোকে যা বলেছিলাম তুই কাকু কাকিমাকে জানিয়েছিস?"
আমি অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করলাম-"তুই তো বারণ করেছিলিস সুমন্ত তাইতো আমি কিছু বলিনি"
সুমন্ত-"অভি...চলনা আমরা ওই ঘরে গিয়ে লুকিয়ে লুকিয়ে সব কথাবাত্রা গুলো শুনি|"
আমি-"কিন্তু কাকিমা তো ওই ঘরে যেতে বারণ করেছে| আর তাছাড়া তোর এতো কৌতুহল কেন এ ব্যাপারে"
Khub sundor dada.
Update din

Reply With Quote
  #14  
Old 19th January 2018
rupakpolo1 rupakpolo1 is offline
 
Join Date: 14th June 2012
Posts: 254
Rep Power: 15 Points: 639
rupakpolo1 has received several accoladesrupakpolo1 has received several accoladesrupakpolo1 has received several accolades
সুমন্ত-"আমার মা বাবা আজ কথা বলবে এই ব্যাপারে .....আমার খুব ভয় করছে ....আমাদের এই গ্রাম থেকে রেহাই পাওয়ার শেষ আশা আমাদের.....আমরা লুকিয়ে লুকিয়ে শুনবো..কেউ জানতে পারবে না|"
আমি সুমন্তের কথার মাথা মুন্ডু কিছুই বুঝতে পারছিলাম না| শেষে দীর্ঘ নিশ্বাস ফেলে বললাম-"ঠিক আছে চল..."
আমরা হাটতে হাটতে শেষ পর্যন্ত মাঝের ঘরে এলাম যেখানে বাবা মা আর কাকু কাকিমা গল্প করছিলো| শিখা কাকিমা-"কাকলি তোকে আজ বেশ সুন্দর লাগছে এই শাড়িটাতে...কোথা থেকে কিনেছিস এই শাড়িটা|"
মা বলল -"আমার পতিদেব বিবাহবর্সিকির দিন দিয়েছিলো|"
শিখা কাকিমা শেখর কাকুর দিকে উল্লেখ করে বলল-"দেখো বউকে কিভাবে সন্তুষ্টি রাখতে হয়ে দাদার কাছ থেকে শেখো|"
শেখর কাকু-"তোমার সাথে কি কাকলির তুলনা হয়ে"
বাবা প্রতিবাদ করে বসলো-"বৌদি কি কম যায়ে|"
শিখা কাকিমা-"আর ছাড়ো তোমার মতো কি ওতো সুন্দরী|"
মা-"এবার থামবে শিখাদি....তুমি কি একটা বলবে বলছিলে|"
শিখা কাকিমা এবার শেখর কাকুর দিকে তাকালো এবং আসতে আসতে বলতে লাগলো-"তোদেরকে অনেকদিন ধরে একটা কথা বলবো ভাবছিলাম...জানি না কিভাবে শুরু করি.."
মা-"বোলো না এতো সংকোচ হচ্ছে কেনো?"
শিখা কাকিমা-"দেখো...এই গ্রামটা মেয়েদের জন্য ভালো নয়ে| গ্রামে মেয়ের সংখ্যা খুব কম এবং বাইরে থেকে যারা আসে তাদের নিরাপত্তার খুব অভাব|"
মা শিখা কাকিমাকে থামিয়ে বলল-"আমি এই কথাটা ওকে বলছিলাম....শুধু রঘুকে মনে হয়ে একটু স্বাভাবিক...বাজারে একবার গেছিলাম....ইস কি ভাবে তাকাচ্ছিলো আমার দিকে..খুব অসভ্য এই গ্রামের লোকেরা|"
শিখা কাকিমা-"তুই একা গিয়েছিলিস কেনো বাজারে|"
মা-"একবারে গেছি আর তারপর যাওয়া হয়েনি|"
শিখা কাকিমা-"একদম যাবি না|"
শেখর কাকু-"তোমার বৌদির সাথে যা ঘটেছে ওই বাজারে শুনলে আতকে উঠবে|"
বাবা-"কি ঘটেছে?"
শিখা কাকিমা-"শুধু বলতে পারি আমার আজ আমি ঠিক মতো আছি তার কারণ হচ্ছে দীপক.."
মা-"দীপক"
শেখর কাকু-"হাসপাতালে কাজ করে , এই গ্রামের ছেলে| আমাকে তো মেরে মুখ ফাটিয়ে দিয়েছিলো|"
মায়ের চোখ গোল হয়ে গেলো-"আপনার সামনে এই সব ঘটেছে|"
বাবা-"তারপর?"
শেখর কাকু শিখা কাকিমাকে বলল-"চা টা মনে হয়ে গরম হয়ে গেছে..নিয়ে এসো শিখা|"
শিখা কাকিমা চা আনতে চলে গেলো | সারা ঘরে একটা নিস্তব্ধতা ছড়িয়ে পড়েছিলো | বাবা নিস্তব্ধতা টা ভাঙলো-"আপনারা পুলিশের কাছে যান নি|"
শেখর কাকু-"এখানে পুলিশ পরিবার গ্রামের লোকের হাত থেকে বাঁচে না| দীপক ছিলো বলে তোমার বৌদি সেদিন বেচে গেছিলো কিন্তু বিপদের আশংকা সব সময়ে আছে এই গ্রামে| আমাকে জীবনে অনেক কঠিন পরিখ্যা দিতে হয়েছিলোন এই গ্রামে|"
রান্নাঘর থেকে চা নিয়ে ঘরে ঢুকলো শিখা কাকিমা| চায়ের ট্রে থেকে সবাই চা নিয়ে নিশব্দে চা খেতে লাগলো| মা-"এই দুদিন আগে বাবাইয়ের এই গ্রামের এক ছেলের সাথে মারপিট হয়েছিলো| ছেলেটার কি নাম মনে পরছে না|"
শিখা কাকিমা-"শংকর....এই গ্রামের নাম করা গুন্ডা রজত সেথের ছেলে| আমাকে রাজা বলছিলো|"
সুমন্তের ডাক নাম রাজা|
শেখর কাকু-"খুব মারাত্বক লোক এই রজত সেথ|"
মা-"বিশ্বাস করো শিখা দি এরকম নোংরা অসভ্য় লোক কোনদিনও দেখিনি"
শিখা কাকিমা--"তুই গেছিলিস নাকি স্কুলে?"
বাবা-"আমি ওকে যেতে বারণ করেছিলাম|"
শেখর কাকু-"তুমি কি জানো জয়ন্ত ওই লোকটা এখানকার দারোগা বাবুর বউ কে তুলে নিয়ে গেছিলো|"
বাবা আতকে উঠে বলল-"কি বলছেন?"
শেখর কাকু-"ঠিক বলছি জয়ন্ত|"
বাবা-"এখন কি উপায়ে?...কাকলিকে বাড়ি পাঠিয়ে দেবো|"
শেখর কাকু-"তুই কি পাগল হয়েছিস..তুই তো সহজে ট্রান্সফার পাবি না|...থাকতে হবে এই গ্রামে...এর থেকে বাচার শুধু একটাই উপায়ে আছে|"
বাবা-"কি?"

Reply With Quote
  #15  
Old 19th January 2018
ranjitadas ranjitadas is offline
 
Join Date: 16th September 2012
Location: red light area
Posts: 36
Rep Power: 15 Points: 4
ranjitadas is an unknown quantity at this point
daroon update...ei rokom suspense e na rekhe porer update tao diye din...

Reply With Quote
  #16  
Old 19th January 2018
pongpong2000 pongpong2000 is offline
Custom title
 
Join Date: 24th September 2016
Posts: 2,519
Rep Power: 6 Points: 181
pongpong2000 is beginning to get noticed
Quote:
Originally Posted by rupakpolo1 View Post
সুমন্ত-"আমার মা বাবা আজ কথা বলবে এই ব্যাপারে .....আমার খুব ভয় করছে ....আমাদের এই গ্রাম থেকে রেহাই পাওয়ার শেষ আশা আমাদের.....আমরা লুকিয়ে লুকিয়ে শুনবো..কেউ জানতে পারবে না|"
আমি সুমন্তের কথার মাথা মুন্ডু কিছুই বুঝতে পারছিলাম না| শেষে দীর্ঘ নিশ্বাস ফেলে বললাম-"ঠিক আছে চল..."
আমরা হাটতে হাটতে শেষ পর্যন্ত মাঝের ঘরে এলাম যেখানে বাবা মা আর কাকু কাকিমা গল্প করছিলো| শিখা কাকিমা-"কাকলি তোকে আজ বেশ সুন্দর লাগছে এই শাড়িটাতে...কোথা থেকে কিনেছিস এই শাড়িটা|"
মা বলল -"আমার পতিদেব বিবাহবর্সিকির দিন দিয়েছিলো|"
শিখা কাকিমা শেখর কাকুর দিকে উল্লেখ করে বলল-"দেখো বউকে কিভাবে সন্তুষ্টি রাখতে হয়ে দাদার কাছ থেকে শেখো|"
শেখর কাকু-"তোমার সাথে কি কাকলির তুলনা হয়ে"
বাবা প্রতিবাদ করে বসলো-"বৌদি কি কম যায়ে|"
শিখা কাকিমা-"আর ছাড়ো তোমার মতো কি ওতো সুন্দরী|"
মা-"এবার থামবে শিখাদি....তুমি কি একটা বলবে বলছিলে|"
শিখা কাকিমা এবার শেখর কাকুর দিকে তাকালো এবং আসতে আসতে বলতে লাগলো-"তোদেরকে অনেকদিন ধরে একটা কথা বলবো ভাবছিলাম...জানি না কিভাবে শুরু করি.."
মা-"বোলো না এতো সংকোচ হচ্ছে কেনো?"
শিখা কাকিমা-"দেখো...এই গ্রামটা মেয়েদের জন্য ভালো নয়ে| গ্রামে মেয়ের সংখ্যা খুব কম এবং বাইরে থেকে যারা আসে তাদের নিরাপত্তার খুব অভাব|"
মা শিখা কাকিমাকে থামিয়ে বলল-"আমি এই কথাটা ওকে বলছিলাম....শুধু রঘুকে মনে হয়ে একটু স্বাভাবিক...বাজারে একবার গেছিলাম....ইস কি ভাবে তাকাচ্ছিলো আমার দিকে..খুব অসভ্য এই গ্রামের লোকেরা|"
শিখা কাকিমা-"তুই একা গিয়েছিলিস কেনো বাজারে|"
মা-"একবারে গেছি আর তারপর যাওয়া হয়েনি|"
শিখা কাকিমা-"একদম যাবি না|"
শেখর কাকু-"তোমার বৌদির সাথে যা ঘটেছে ওই বাজারে শুনলে আতকে উঠবে|"
বাবা-"কি ঘটেছে?"
শিখা কাকিমা-"শুধু বলতে পারি আমার আজ আমি ঠিক মতো আছি তার কারণ হচ্ছে দীপক.."
মা-"দীপক"
শেখর কাকু-"হাসপাতালে কাজ করে , এই গ্রামের ছেলে| আমাকে তো মেরে মুখ ফাটিয়ে দিয়েছিলো|"
মায়ের চোখ গোল হয়ে গেলো-"আপনার সামনে এই সব ঘটেছে|"
বাবা-"তারপর?"
শেখর কাকু শিখা কাকিমাকে বলল-"চা টা মনে হয়ে গরম হয়ে গেছে..নিয়ে এসো শিখা|"
শিখা কাকিমা চা আনতে চলে গেলো | সারা ঘরে একটা নিস্তব্ধতা ছড়িয়ে পড়েছিলো | বাবা নিস্তব্ধতা টা ভাঙলো-"আপনারা পুলিশের কাছে যান নি|"
শেখর কাকু-"এখানে পুলিশ পরিবার গ্রামের লোকের হাত থেকে বাঁচে না| দীপক ছিলো বলে তোমার বৌদি সেদিন বেচে গেছিলো কিন্তু বিপদের আশংকা সব সময়ে আছে এই গ্রামে| আমাকে জীবনে অনেক কঠিন পরিখ্যা দিতে হয়েছিলোন এই গ্রামে|"
রান্নাঘর থেকে চা নিয়ে ঘরে ঢুকলো শিখা কাকিমা| চায়ের ট্রে থেকে সবাই চা নিয়ে নিশব্দে চা খেতে লাগলো| মা-"এই দুদিন আগে বাবাইয়ের এই গ্রামের এক ছেলের সাথে মারপিট হয়েছিলো| ছেলেটার কি নাম মনে পরছে না|"
শিখা কাকিমা-"শংকর....এই গ্রামের নাম করা গুন্ডা রজত সেথের ছেলে| আমাকে রাজা বলছিলো|"
সুমন্তের ডাক নাম রাজা|
শেখর কাকু-"খুব মারাত্বক লোক এই রজত সেথ|"
মা-"বিশ্বাস করো শিখা দি এরকম নোংরা অসভ্য় লোক কোনদিনও দেখিনি"
শিখা কাকিমা--"তুই গেছিলিস নাকি স্কুলে?"
বাবা-"আমি ওকে যেতে বারণ করেছিলাম|"
শেখর কাকু-"তুমি কি জানো জয়ন্ত ওই লোকটা এখানকার দারোগা বাবুর বউ কে তুলে নিয়ে গেছিলো|"
বাবা আতকে উঠে বলল-"কি বলছেন?"
শেখর কাকু-"ঠিক বলছি জয়ন্ত|"
বাবা-"এখন কি উপায়ে?...কাকলিকে বাড়ি পাঠিয়ে দেবো|"
শেখর কাকু-"তুই কি পাগল হয়েছিস..তুই তো সহজে ট্রান্সফার পাবি না|...থাকতে হবে এই গ্রামে...এর থেকে বাচার শুধু একটাই উপায়ে আছে|"
বাবা-"কি?"
Very nyc

Reply With Quote
  #17  
Old 19th January 2018
pongpong2000 pongpong2000 is offline
Custom title
 
Join Date: 24th September 2016
Posts: 2,519
Rep Power: 6 Points: 181
pongpong2000 is beginning to get noticed
Chalie jan

Reply With Quote
  #18  
Old 19th January 2018
palashlal palashlal is offline
Custom title
 
Join Date: 7th October 2013
Posts: 5,274
Rep Power: 23 Points: 9264
palashlal has celebrities hunting for his/her autographpalashlal has celebrities hunting for his/her autographpalashlal has celebrities hunting for his/her autographpalashlal has celebrities hunting for his/her autographpalashlal has celebrities hunting for his/her autographpalashlal has celebrities hunting for his/her autographpalashlal has celebrities hunting for his/her autographpalashlal has celebrities hunting for his/her autographpalashlal has celebrities hunting for his/her autographpalashlal has celebrities hunting for his/her autograph
র ই লা ম ...

Reply With Quote
  #19  
Old 19th January 2018
rupakpolo1 rupakpolo1 is offline
 
Join Date: 14th June 2012
Posts: 254
Rep Power: 15 Points: 639
rupakpolo1 has received several accoladesrupakpolo1 has received several accoladesrupakpolo1 has received several accolades
শেখর কাকু-"আমি দীপকের সাথে শিখার বিয়ে দিয়েছিলাম শিখার নিরাপত্তার জন্য|"
এই কথাটা শুনে আমার মা আর বাবা দুজনে একসাথে আতকে উঠলো| বাবা-"কি বলছেন আপনি ?"
শিখা কাকিমা-"ঠিক কথা বলছে জয়ন্ত| এছাড়া কোনো উপায়ে নেই| আজ যদি আমি আমার ইজ্জৎ নিয়ে এই গ্রামে বেচে আছি তার এক মাত্র কারণ হচ্ছে তোমার দাদার ওই সিধান্ত| শুধু গ্রামের কোনো পুরুষের স্ত্রী হলে সেই পুরুষের স্ত্রীর দিকে কু নজর দেবে না এই গ্রামের লোক|"
শেখর কাকু-"এর জন্য দীপক কে আমায়ে পয়েসা দিতে হয়েছে|"
মা-"তাহলে গ্রামের মেয়েদের দুটো মরদ হয়ে কি করে|"
শিখা কাকিমা-"তোকে কে বলল?"
মা-"আমাদের কাজের মাসি কমলার মুখে শুনেছি"
শিখা কাকিমা-"হা হয়ে| কিন্তু শুধু গ্রামের ওই মেয়ের মরদ চাইলে হয়ে| দীপক কোনদিনও আমায়ে ছয়েনি এবং আমাকে ছুতে দেয়নি|"
শেখর কাকু-"এর জন্য একটা বিশ্বাসী লোক দরকার জয়ন্ত|"
বাবা-"আমি বিশ্বাস করতে পারছি না| আমরা এবার আসি| "
শেখর কাকু-"রেগো না জয়ন্ত| খেয়ে যাও"
বাবা-"কাকলি ওঠো| অভিষেক কে ডাকো| আমরা বেড়াবো|"
মা উঠে পড়ল | বাবা হন হন করে বেড়িয়ে গেলো| মা আমাকে ডাকলো, আমি এমন ভান করলাম যে আমি অন্য ঘর থেকে এসেছি এবং মায়ের কাছে এসে দাড়ালাম| বাবার এই ব্যবহারে মা একটু অপ্রস্তুত হয়ে গেছিলো| কোনো রকম ভাবে বলল শিখা কাকিমা আর শেখর কাকুকে-"আসছি..তাহলে আমরা"
বাড়িতে গিয়ে বাবা গজর গজর শুরু করে দিলো-"আমি বিশ্বাস করতে পারছি না...এই লোকগুলো এরকম নোংরা মানুষিকতার লোক হবে| আর কোনদিন ওদের বাড়িতে যাবো না|"
বাড়িতে পৌছে মা বেশ চুপচাপ ছিলো| বাবার সারাদিন মেজাজ বিগড়ে ছিলো| আমাকে মা বারণ করে দিয়েছিলো রাতে খাওয়ার সময়ে সুমন্তের সাথে বেশি মেলা মেশা না করতে| রাতে নিজের ঘরে চুপ চাপ শুয়ে সুমন্তের সাথে আমার কথাবাত্রা গুলো নিয়ে ভাবতে লাগলাম| মনের মধ্যে একটা বড় প্রশ্ন জাগছিলো, সুমন্ত কি বলতে চেয়েছিলো এই বোলে কাকিমার সাথে এই গ্রামের লোকেরা অনেক নোংরা জিনিস পত্র করেছে| সেদিন রাতে আমার ঘুম আসতে দেরী হয়ে গেছিলো এবং নিজের ঘরে খাটের চারপাশে ছটফট করে যাচ্ছিলাম| হটাত মনে হলো আমার ঘরে জানলার পাশ দিয়ে একটা যেনো ছায়া চলে গেলো| বুঝতে পারলাম আমাদের বাংলোর চারপাশে কেউ যেনো ঘুরে বেড়াচ্ছে|
আমি জানলা দিয়ে উকি মেরে দেখলাম কিছু টা দুরে কেউ যেনো শাল মুড়ি দিয়ে দাড়িয়ে আচ্ছে| অন্ধকারে কিছুই দেখতে পাচ্ছিলাম না, শুধু চোখে ধরা পড়লো সেই ছায়া মূর্তির পায়ের আঙ্গুলে আংটির মতো কি যেনো একটা জ্বলজ্বল করছে| আমি ভাবলাম বাবা মাকে গিয়ে জানাই| নিজের ঘর থেকে বেড়িয়ে আমি বাবা মায়ের ঘরে গেলাম| বাবা মায়ের ঘর থেকে এক অদ্ভুত রকম ক্ষীন আওয়াজ আসছিলো| আমি সেটা অমান্য করে , দরজায় টোকা মারলাম| ভেতর থেকে বাবার বিরক্ত গোলার আওয়াজ পেলাম-"কে?"
আমি ফিস ফিস করে বললাম-"বাবা আমি..."
বাবা একই রকম ভাবে বিরক্ত সহকারে উত্তর দিলো-"এতো রাতে?"
আমি বুঝতে পারছিলাম না বাবাকে এই বাড়ির চারপাশে ঘুরে বেড়ানোর আগন্তুকের ব্যাপারে চেচিয়ে বলবো কিনা| এমন সময়ে মায়ের গোলার আওয়াজ পেলাম , ফিস ফিস করে বলল -"দেখো না কি হয়েছে....এতো রাত অব্দি তো বাবাই জেগে থাকে না|"
কিছুক্ষণ পর বাবা দরজা খুলল| দেখলাম খালি গায়ে ঘামছে, পরনে বারমুডা যেটা ফুলে রয়েছে আর খাটে মা শুয়ে রয়েছে, শরীরের উপরে একটা চাদর জড়ানো, চুল এলো মেলো,চাদরের নিচে মায়ের দুধ্খানি স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে, মা একটু জোরে জোরে নিশ্বাস নিচ্ছিলো বলে বুক দুটি চাদরের ভেতরে ওঠা নামা করছিলো| মায়ের মুখে হালকা ঘামের চিহ্ন ছিলো এবং কেনো যেনো মনে হচ্ছিলো চাদরের নিচে মা পুরোপুরি উলঙ্গ| মা নিজের মুখের উপর থেকে চুলগুলো সরাতে সরাতে জিজ্ঞেস করলো-"কি হয়েছে বাবাই?"
আমি বললাম-"মা..কেউ যেনো বাড়ির চারপাশে ঘুরে বেড়াচ্ছে|"
মা দুশ্চিন্তার চোখে বাবার দিকে তাকালো|বাবা-"তুই ঠিক দেখেছিস....বাবাই"
আমি-"হা বাবা"
বাবা-"চল বাইরে"
বাবা জামা কাপড় পরে বাইরে চলে গেলো| মা আমায়ে বলল-"তুই তোর ঘরে যা আমি আসছি"
আমি আমার ঘরে চলে গেলাম| বাবা চারপাশ দেখে ভেতরে এসে বলল সে কাউকে দেখেনি| আমি বোঝানোর চেষ্টা করতে লাগলাম কেউ যেনো ছিলো বাইরে কিন্তু বাবা বিশ্বাস করলো কিন্তু মা অবিশ্বাস করলো না আমার কথাটা, বাবাকে পুরো পুরি বলে ফেলল-"আমার একদম ভালো লাগছে না এই গ্রামে থাকতে| চলো আমরা কাল ফিরে যাই"
বাবা-"উফ...তুমি সকালের এই সব ঘটনা নিয়ে বেশি ভাবছো|"
পরের দিন স্কুলে আমার সাথে সুমন্তের দেখা হলে , আমি সুমন্তকে এড়াতে লাগলাম| বাড়িতে এসে যখন ঢুকলাম, দেখলাম মা বাগে সব জামা কাপড় গোছাচ্ছে| আমাকে পরে জানালো যে আমাকে আর স্কুলে যেতে হবে না| আমরা দুদিন পর কলকাতায়ে রয়না দেবো| আমারও ভালো লাগলো এই খবর শুনে, কিন্তু সবার থেকে খুশি ছিলো মা কিন্তু মায়েরএই খানিক মানসিক সুখ ছিলো ভাগ্যের নির্মম পরিহাস | মা জানতো না তার জীবনে কত বড় ঝর আসতে চলছে| মা তখনও বোঝেনি এই দিনটি ছিলো মায়ের পবিত্র হয়ে থাকার এই গ্রামের শেষ দিন| এরপর থেকে কিভাবে আমার মায়ের যৌন শোষণ শুরু হয়ে তা আজও ভাবলে বুক কেপে ওঠে|
সেদিন সন্ধ্যে, যে সময়ে বাবা অফিস থেকে ফেরে, ঠিক সেই সময়ে রঘুর গাড়ি এসে দাড়ায়ে আমাদের বাংলোর কাছে| বাবাকে দেখতে না পেয়ে রঘু জিজ্ঞেস করে মা বাবা কোথায়ে, তার উত্তরে রঘু জানায়ে বাবাকে রজত সেথের কিছু গুন্ডা হামলা করে এবং বাবা হাসপাতালে| আমদেরকে তখনাত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়ে| সেখানে শেখর কাকু ছিলো, মাকে দেখে বলল-"চিন্তা করো না কাকলি...জয়ন্ত ঠিক আছে....জ্ঞান আসেনি কিন্তু স্বাভাবিক|"
বাবার জ্ঞান হারিয়েছে শুনে মায়ের পায়ের থেকে মেঝে সরে গেলো, প্রায়ে পরে যাচ্ছিলো যদি না রঘু এসে ধরতো| শেখর কাকু-"কাকলি তুমি নিজেকে সামলাও"
মা রঘুর হাত দুটো থেকে নিজেকে ছাড়িয়ে-"আমায়ে নিয়ে যান..ওকে দেখতে চাই"
শেখর কাকু-"বাবাই এখানে থাক..তুমি আমার সাথে চলো"|

Reply With Quote
  #20  
Old 19th January 2018
ranjitadas ranjitadas is offline
 
Join Date: 16th September 2012
Location: red light area
Posts: 36
Rep Power: 15 Points: 4
ranjitadas is an unknown quantity at this point
daroon update.....

Reply With Quote
Reply Free Video Chat with Indian Girls


Thread Tools Search this Thread
Search this Thread:

Advanced Search

Posting Rules
You may not post new threads
You may not post replies
You may not post attachments
You may not edit your posts

vB code is On
Smilies are On
[IMG] code is On
HTML code is Off
Forum Jump


All times are GMT +5.5. The time now is 07:58 AM.
Page generated in 0.02224 seconds